পছন্দ আপনার, ভবিষ্যতটাও আপনার!

আবু বকরকে মনে পড়ে ?

ঐযে দিনমজুরের ছেলে ! ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র … ছাত্রলীগের গুলিতে খুন হবার আগে যার সিজিপিএ ছিল রেকর্ড ৩.৭৫ ! রেজাল্ট বের হবার আগেই সে খুন হয়, রেজাল্ট বের হবার পরে দেখা গেল – মৃত আবুবকরই বরাবরের মত প্রথমস্থান অর্জন করেছিল ।

তার হত্যাকারী ছাত্রলীগের নেতারা কিন্তু ঠিকই ২০১৭ সালে আদালতের রায়ে খালাস পেয়ে বের হয়ে গেছে । আবু বকরকে কেউ খুন করেনি ! একই ঘটনা ঘটেছিল বিশ্বজিৎ নামের ছেলেটির সাথে, আপনারা দেখেছিলেন কারা ওকে কুপিয়েছিল। কিন্তু আইন অন্ধ…. তাই দেখেনি… সবাই ছাড়া পেয়ে গেছে… সব্বাই!

তনুকে মনে আছে ? অথবা বগুড়ার সেই মা আর মেয়ের কথা – যাদের তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছিলো তুফান লীগ ? পটুয়াখালীর সেই হিন্দু মা আর মেয়ের কথা , যাদের তুলে নিয়ে ট্রলারে ধর্ষণ করেছিল ৬ সোনার ছেলের দল ?

অথবা বুশরা নামের মেয়েটি … যাকে ধর্ষন করে হত্যা করা হয়েছিলো ? ফাঁসির রায় পাওয়া সব নেতারাও কিন্তু খালাস পেয়ে বের হয়ে গেছে।

অথবা , গাজীপুরের সেই হতদরিদ্র বাবা আর মেয়েটির কথা , যে শিশু মেয়েটির ধর্ষনের বিচার না পেয়ে অসহায় বাবা মেয়েটিকে নিয়ে রেলগাড়ির নিচে শুয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছিল ? মনে পড়ে ?

মনে আছে পহেলা বৈশাখে মেয়েদের গণযৌননির্যাতন ? সকল ভিডিও ফুটেজ আর ইমেজ ছিল …কিন্তু কারা অপকর্ম করেছিল , তার কি বিচার হয়েছে ?

মনে আছে ৭ ই মার্চের সমাবেশ উপলক্ষে রাজধানীর রাস্তায় রাস্তায় সোনার ছেলেদের দ্বারা মেয়েদের যৌননির্যাতন ? হয়রানি ?

অথবা শাজাহান খানের শ্রমিকদের দ্বারা মেয়েদের শরীরে মাখানো কালি ? প্রতিনিয়ত বাসের ভেতর ধর্ষন ? কোন সুবিচার পেয়েছেন ?

মনে পড়ে , হলের ভেতর নিয়মিত ছাত্রীনির্যাতনের প্রতিবাদ করতে গিয়ে উলটো বহিষ্কৃত হতে হয়েছিল আপনার সহপাঠিনীদের ?

অথবা চাকরির দাবীতে আপনার ও আপনার সহপাঠীর উপর নেমে আসা নির্যাতন, আপনার সহপাঠিনীর বুকের ওড়না ছিড়ে ফেলা …অথবা সংবেদনশীল অঙ্গে পশুদের হাত …মনে পড়ে ?

অথবা নিরাপদ সড়কের দাবীতে রাস্তায় নামা আপনার ছোট ভাই বোনদের উপর নেমে আসা অত্যাচার ?

৩০ ডিসেম্বর আপনি সব ভুলে বাসায় একদিনের আরামপ্রদ ছুটি কাটাতে পারেন এবং ভবিষ্যত ৫ বছর রাস্তাঘাটে-শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিজেদের এবং নিজের আপনজনদের হয়রানির শিকার হতে দেখতে পারেন , নিশ্চিত থাকুন – কোন বিচার পাবেন না ।

অথবা ৩০ ডিসেম্বর আপনি কষ্ট করে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে সকল অবিচারের পাওনা সুবিচার আদায় করতে পারেন ।

পছন্দ আপনার । কারন ভবিষ্যতটাও আপনার ।  হয় ভুগবেন আপনি । অথবা ওদের ভোগাবেন আপনি ।

You may also like...

7 Responses

  1. ইউসুফ হাওলাদার says:

    তুই নিজেকে বাংলাদেশের নাগরিক মনে করে থাকলে এসব মিথ্যাচার করিস কিভাবে? নাকি তুই পাকিস্তান প্রেমিক?

  2. মির্জা আব্বাস says:

    আমি তোরে সামনে পাইলে পিটামু

  3. কামাল খান says:

    তোরে গুলি করে মেরে ফেলবো

  4. আব্দুস সাত্তার says:

    তোদের মতো দেশদ্রোহীদের জন্য আমার বাংলাদেশে কোন যায়গা নেই

  5. সিরাজুল ইসলাম says:

    তোরা বলিস গণতন্ত্রের কথা!? খুবি হাস্যকর! আর্মি দিয়ে অস্ত্রের মুখে ক্ষমতা দখলকারী দলের পক্ষে এসে এসব আবালরা যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তখন হাসি ছাড়া আর কি বা বলার আছে?

  6. It’s nearly impossible to find educated people
    on this subject, however, you seem like you know what you’re talking about!
    Thanks

  7. This is my first time go to see at here and i am actually pleassant to read all at one place.

Leave a Reply

Read previous post:
মাদকবিরোধী অভিযান ২০১৮

সমাজে মাদকের ভয়াবহতা ক্যান্সারের মতো। কিছু কিছু ক্ষেত্রে ক্যান্সারের থেকেও মাদকের ভয়াবহতা বেশি। মাদকে আসক্ত হয়ে সন্তানরা বাবা-মাকে হত্যা করছে।...

Close